ইরানের বিরুদ্ধে হাজার গুণ জোরালো প্রতিশোধের হুমকি ট্রাম্পের

যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থের ওপর ইরান কোনও হামলা চালালে তেহরানের বিরুদ্ধে এক হাজার গুণ জোরালো প্রতিশোধ নেওয়ার হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সংবাদমাধ্যমের এক খবরের দিকে ইঙ্গিত করে সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাতে এক টুইট বার্তায় এই হুমকি দেন তিনি। ওই খবরে দাবি করা হয়, মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নেওয়ার পরিকল্পনা করছে ইরান। অন্যদিকে মঙ্গলবার সকালে এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেছেন, সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাসার আল আসাদকে হত্যা করতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে তাকে সেসময় থামিয়ে দেন তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী

জেমস ম্যাটিস। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সম্প্রতি মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকোর এক খবরে পরিচয়হীন এক গোয়েন্দা সূত্রের বরাতে বলা হয়, জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে দক্ষিণ আফ্রিকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত লানা মার্কসকে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে ইরান। হ্যান্ডব্যাগ ডিজাইনার মার্কস ট্রাম্পের দীর্ঘ দিনের বন্ধু। ইরানি ষড়যন্ত্রের জেরে তাকে অতিরিক্ত নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে বলেও ওই খবরে দাবি করা হয়।

ওই খবরের দিকে ইঙ্গিত করে সোমবার রাতে এক টুইট বার্তায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প লেখেন, ‘সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, সন্ত্রাসী নেতা (কাসেম) সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নিতে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে একটি গুপ্তহত্যা, কিংবা অন্য হামলার প্রস্তুতি নিয়ে থাকতে পারে ইরান।’ তিনি লেখেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ইরান কোনও হামলা চালালে, তা যে ধরণেরই হোক, তার জবাবে ইরানকে এক হাজার গুণ জোরালো পাল্টা হামলা সহ্য করতে হবে।’

মঙ্গলবার সকালে ফক্স অ্যান্ড ফ্রেন্ডসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ইরানকে দেওয়া হুমকি পুনর্ব্যক্ত করেন ট্রাম্প। সেখানে তিনি বলেন, ‘আমাদের সব কিছুই প্রস্তুত আর তারা (ইরান) যদি কারোর কোনও কিছু করে তাহলে আমাদের ওপর যে আঘাত করবে তার এক হাজার গুণ জোরালো পাল্টা আঘাত পাবে।’ এই সাক্ষাৎকারে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাসার আল আসাদকে হত্যার পরিকল্পনা নিয়েও আলাপ করেন ট্রাম্প।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, আমি চাইলে তাকে (বাসার আল আসাদ) গুলি করে হত্যা করাতে পারতাম কিন্তু (জেমস) ম্যাটিস এর বিরোধিতা করেছিল। তিনি বলেন, ‘বেশিরভাগ কর্মীর বিরোধিতা করেছিল ম্যাটিস... কিভাবে জেতা লাগে সেটা সে জানতো না।’ ফক্স অ্যান্ড ফ্রেন্ডসের তরফে সাবেক জেনারেল মাটিসকে মহান মার্কিন নাগরিক হিসেবে বর্ণনা করা হলে ট্রাম্প বলেন, আমি বলতে চাই না তিনি ভালো আমেরিকান নাকি খারাপ আমেরিকান। শুধু বলেছি যে তিনি ভালো কাজ করেননি। আমি তাকে বিদায় দিয়েছি।

উল্লেখ্য, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৮ সালে সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিলে পদত্যাগ করেন তৎকালীন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জেমস ম্যাটিস।

সর্বশেষ সংবাদ