ক্রিকেট মাঠে মনি যেভাবে মাশরাফি হয়ে ওঠেন!

টিভি নাটকে মাশরাফি! না, ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজার গল্প নয় এটি। তবে গল্পটা ক্রিকেটকেন্দ্রিক।

দীপ্ত টিভির জন্য নির্মিত হচ্ছে মেগা ধারাবাহিক ‘মাশরাফি জুনিয়র’। সাজ্জাদ সুমনের পরিচালনায় নাটকটির চিত্রনাট্য করেছেন আসফিদুল হক ও সংলাপ মো. মারুফ হাসান।

যেখানে দুই ভাইবোনের ক্রিকেট খেলার গল্প উঠে আসবে। যেখানে দেখা যাবে, ভাইকে হারিয়ে ফেলার পর নিজেই মাশরাফি সেজে মাঠে নামে বোন। এখানে জুনিয়র মাশরাফি চরিত্রে দেখা যাবে শিশুশিল্পী সাফানা নমনিকে।

দীপ্ত টিভি জানায়, ৮ সেপ্টেম্বর শুরু হচ্ছে এর দৃশ্যধারণ। সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে হবে এর শুটিং। ইতোমধ্যে শতাধিক শিশু-কিশোরের অডিশন নেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে নির্বাচিতদের নিয়েই ‘মাশরাফি জুনিয়র’-এর কাজ হবে।   

সাজ্জাদ সুমনের বয়ানে এর গল্পটা এমন- মন্ডা আর মণি দুই ভাই বোন। বাবা-মা নেই তাদের। পাশের বাড়িতেই থাকে চাচা আর চাচি। গ্রামজুড়ে আসে উৎসবের মৌসুম। সামনে নির্বাচন। বর্তমান চেয়ারম্যানের ইচ্ছা চেয়ারম্যান কাপ দিয়েই মানুষকে দেখিয়ে দেবে তার শক্তি। কিন্তু চেয়ারম্যানের এই কাপ পাওয়ার মাঝে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে মন্ডা। পুঁচকে এই মন্ডাদের কাছে হেরে যাওয়া কিছুতেই মেনে নেবে না চেয়ারম্যান। কিন্তু মন্ডা খেললে হেরে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। রাতের অন্ধকারে কে বা কারা এসে মনির পাশ থেকে তুলে নিয়ে যায় মন্ডাকে। মনি জানে মন্ডা ফিরবে। যেখানে ক্রিকেট আছে সেখানেই ফিরবে মন্ডা। ওদিকে চাচা জানায়

মন্ডা হয়তো শহরেই চলে গেছে। কারণ, শহরে ক্রিকেটারদের দাম আছে আলাদা।

মনিরও উচিত শহরে গিয়ে মন্ডাকে খোঁজা। মনিকে তাই আসতে হয় শহরে, সাদিকের বাড়িতে। মনি এক নতুন পরিবেশে এসে আসলে একজন কাজের মেয়ে হয়ে উঠতে শুরু করে। বাড়ির প্রচুর কাজ সে সামলাতে থাকে। ঘরের কাজ করতে করতে ক্লান্ত মনির একটু স্বস্তি বাসার ছেলে আয়ান যখন মহল্লার ক্লাবে ক্রিকেট খেলতে যায়। আয়ানের ক্রিকেট কিট ব্যাগে বয়ে নিয়ে যেতে হয় তাকে। মনি সেখানে তার সমবয়সীদের দেখা পায়। পাড়ার একটা ক্রিকেট টুর্নামেন্টে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে নেমেই মনি প্রথম ম্যাচে নজরকাড়া পারফরম্যান্স দেখায়।

কিন্তু ছেলেদের টুর্নামেন্টে মেয়েরা কেন খেলবে, এই যুক্তিতে পরের ম্যাচটা মনি খেলতে পারে না। ফলে মনির দলটা হেরে যায়। আয়ানের বুদ্ধিতে মনির চুল-টুল কেটে ছেলেদের মতো সাজিয়ে দেওয়া হয়। নাম রাখা হয় মাশরাফি জুনিয়র।

এতে সাফানা নমনি ছাড়াও অভিনয় করেছেন শতাব্দী ওয়াদুদ, গোলাম ফরিদা ছন্দা, চিত্রলেখা গুহ, ফজলুর রহমান বাবু, রুনা খান, লুৎফর রহমান জর্জ, অনিন্দ্য, হামিমসহ অনেকে।কাজটি প্রসঙ্গে সাজ্জাদ সুমন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এমন কাজ আমাদের এখানে আগে হয়নি। ফলে বেশ চ্যালেঞ্জিং। বাচ্চাদের দিয়ে অভিনয় করানো, সেটাও কঠিন। তবে সব জেনে বুঝেই কাজটি হাতে নিয়েছি। এরমধ্যে আমরা মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গেও যোগাযোগ করেছি। বলেছি, সম্ভব হলে আমাদের টিমের সঙ্গে একটু সময় দিতে। আমরা উৎসাহিত হতাম। বিষয়টি তার জীবনের সঙ্গে জড়িত না হলেও, তার নাম বা অনুপ্রেরণাটা তো থাকছে এখানে। তাই এই যোগাযোগ করা। আমার

বিশ্বাস, সিরিজটি সম্প্রচারের আগে শুটিং ইউনিটে তাকে পাবো।’

সর্বশেষ সংবাদ